top of page

সুরের সরস্বতী নামিয়ে রাখলেন বীণা

বয়স হয়েছিল বিরানব্বই। 1929 সালে 28শে সেপ্টেম্বর ইন্দোরে একটি মারাঠি পরিবারে  তাঁর জন্ম। জন্মের পর লতা মঙ্গেশকরের নাম ছিল হেমা। পরবর্তীতে তাঁর বাবা মা নাম পরিবর্তন করে লতা মঙ্গেশকর রাখেন।   পিতা দীননাথ মঙ্গেশকর ছিলেন মারাঠি অভিনেতা এবং সঙ্গীত শিল্পী।মায়ের নাম শীবন্তি মঙ্গেশকর। তাঁরা ছিলেন তিন বোন ও এক ভাই। দুই বোন ঊষা মঙ্গেশকর ও আশা ভোঁশলে উভয়েই স্বনামধন্য সঙ্গীত শিল্পী। একমাত্র ভাই হৃদয়নাথ মঙ্গেশকর সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে পরিচিত। প্রথাগত শিক্ষা বলতে যা বোঝায় তিনি সেই বাঁধনে নিজেকে আটকে রাখেননি। মুম্বাই এর একটি স্কুলে তাঁকে ভর্তি করা হলেও  তিনি মাত্র একদিন স্কুলে গিয়েই তাঁর স্কুল জীবন সমাপ্ত করেন। সুর যাঁর রক্তে চার দেওয়ালের আবদ্ধ শিক্ষা  তাঁকে বেঁধে রাখবে কীভাবে?    1938সালে 9ই সেপ্টেম্বর মাত্র পাঁচ বছর বয়সে বাবার হাত ধরে সোলাপুরে নতুন সঙ্গীত থিয়েটারে  তিনি প্রথম শাস্ত্রীয় সঙ্গীত পরিবেশন করেন। 2021 সালে তাঁর একটি সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে এই তথ্য সামনে আনেন।      1943 একটি মারাঠি ছবিতে প্রথমবার তিনি প্লেব্যাক সিঙ্গার হিসেবে ডেবিও করেন। তারপর সেই বেপরোয়া সুর আর থামেনি কখনো। সমগ্র সঙ্গীত জীবনে পেয়েছেন অজস্র সম্মান এবং তাঁর পুরস্কারের ঝুলি কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে উপচে পড়ছে। 1972,1974 এবং 1990 সালে বেস্ট ফিমেল প্লেব্যাক সিঙ্গার হিসেবে ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড পান। 1959, 1963,1966,1970,1994, 1995 সালে পরপর বেস্ট ফিমেল প্লেব্যাক সিঙ্গার হিসেবে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার পান। এছাড়াও অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মান রয়েছে তাঁর দখলে।      তাঁর সুরের ধারা বয়ে চলুক অবিরত।  সেই ধারায় আমরাও ভেসে চলি অজানা নক্ষত্র-পথে।



30 views0 comments

Comments


bottom of page